Padma News – Bangla https://padmanews.com/bangla News in Times Mon, 22 May 2017 17:56:35 +0000 en-US hourly 1 121875726 লন্ডনে ধর্ষণচেষ্টার দৃশ্য ধারণ করল নারী, বাংলাদেশির জেল https://padmanews.com/bangla/international/217891/women-in-rape-attempt-in-london-women-prisoners-bangladeshi-prison/ Mon, 22 May 2017 17:56:35 +0000 https://padmanews.com/bangla/?p=217891 লন্ডনের কেন্টের রামসগেট এলাকার ঘটনা। বিদ্যুৎ খরচ কমাতে রাতে সড়কের বাতিগুলো নিভিয়ে রাখা হয়েছিল। এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে আশরাফ মিয়া (৩৪) নামে এক বাংলাদেশি ১৮ বছর বয়সী ব্রিটিশ তরুণী লিলিয়েন কনস্টানটিনকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। সোমবার যুক্তরাজ্যের মেইল অনলাইন এক প্রতিবেদনে এ খবর প্রকাশ করে। প্রতিবেদনে জানানো হয়, লিলিয়েন কৌশলে ওই ধর্ষণচেষ্টা ও হামলার দৃশ্য তাঁর […]

The post লন্ডনে ধর্ষণচেষ্টার দৃশ্য ধারণ করল নারী, বাংলাদেশির জেল appeared first on Padma News - Bangla.

]]>
লন্ডনের কেন্টের রামসগেট এলাকার ঘটনা। বিদ্যুৎ খরচ কমাতে রাতে সড়কের বাতিগুলো নিভিয়ে রাখা হয়েছিল। এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে আশরাফ মিয়া (৩৪) নামে এক বাংলাদেশি ১৮ বছর বয়সী ব্রিটিশ তরুণী লিলিয়েন কনস্টানটিনকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। সোমবার যুক্তরাজ্যের মেইল অনলাইন এক প্রতিবেদনে এ খবর প্রকাশ করে।

প্রতিবেদনে জানানো হয়, লিলিয়েন কৌশলে ওই ধর্ষণচেষ্টা ও হামলার দৃশ্য তাঁর মোবাইলে ধারণ করেন। ভিডিওতে ধস্তাধস্তির দৃশ্য রয়েছে। ভিডিওতে আশরাফকে ধরা পড়তেও দেখা যায়।

অারও খবর : ইরান সব সন্ত্রাসেই জড়িত : ট্রাম্প

এরপর যুক্তরাজ্যের আদালত ৪৭ সেকেন্ডের ওই ভিডিওকে আমলে এনে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে অভিযুক্ত আশরাফ মিয়াকে সাড়ে ১৩ বছরের কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন।

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, দণ্ডপ্রাপ্ত আশরাফ মিয়া অবৈধভাবে লন্ডনে বসবাস করছিল। ভিডিওটির কারণে আশরাফ মিয়াকে শাস্তি দিতে সক্ষম হয়েছেন আদালত। গত মাসে তাঁর বিরুদ্ধে ওই শাস্তি ঘোষণা করেছে আদালত।

এদিকে হামলাকারীর দণ্ডাদেশের পর মেইল অনলাইনকে লিলিয়েন বলেন, ‘যৌন হামলার শিকার ও নির্যাতিতদের সাহসিকতার পরিচয় দিতে হবে। আমার মতো অবস্থায় থাকা কেউ যদি নিজের ফোনটি হাতে নিতে পারেন তাহলে চেষ্টা করুন ঘটনাটির ভিডিও ধারণ করতে। এতে সুবিচার পাওয়ার যথেষ্ট সুযোগ তৈরি হয়।’

লিলিয়েন আরো বলেন, মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত যদি রাস্তার লাইটগুলো বন্ধ রাখা না হয়, তাহলে অপরাধ অনেকাংশে কমে যাবে।

এসএইচ-২৮/২২/০৫ (আন্তর্জাতিক ডেস্ক)

The post লন্ডনে ধর্ষণচেষ্টার দৃশ্য ধারণ করল নারী, বাংলাদেশির জেল appeared first on Padma News - Bangla.

]]>
217891
দু’ছাত্রী ধর্ষণ মামলা নেওয়ার ক্ষেত্রে পুলিশের গাফিলতির প্রমাণ মেলেনি https://padmanews.com/bangla/national/217889/there-was-no-evidence-of-polices-negligence-in-taking-two-rape-cases/ Mon, 22 May 2017 17:26:18 +0000 https://padmanews.com/bangla/?p=217889 ঢাকার বনানীতে বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া দুই ছাত্রীকে ধর্ষণের মামলা নেওয়ার ক্ষেত্রে পুলিশের গাফিলতির কোনো প্রমাণ মেলেনি বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার (ডিএমপি) মো. আছাদুজ্জামান মিয়া। তবে কিছু ত্রুটি-বিচ্যুতি পাওয়া গেছে বলে জানান তিনি। সোমবার দুপুরে ডিএমপি সদর দপ্তরে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন মো. আছাদুজ্জামান মিয়া। তিনি আরো বলেন, এসব ত্রুটি বিচ্যুতির বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে […]

The post দু’ছাত্রী ধর্ষণ মামলা নেওয়ার ক্ষেত্রে পুলিশের গাফিলতির প্রমাণ মেলেনি appeared first on Padma News - Bangla.

]]>
ঢাকার বনানীতে বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া দুই ছাত্রীকে ধর্ষণের মামলা নেওয়ার ক্ষেত্রে পুলিশের গাফিলতির কোনো প্রমাণ মেলেনি বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার (ডিএমপি) মো. আছাদুজ্জামান মিয়া। তবে কিছু ত্রুটি-বিচ্যুতি পাওয়া গেছে বলে জানান তিনি। সোমবার দুপুরে ডিএমপি সদর দপ্তরে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন মো. আছাদুজ্জামান মিয়া। তিনি আরো বলেন, এসব ত্রুটি বিচ্যুতির বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে সংশ্লিষ্ট পুলিশ সদস্যদের তলব করা হবে।

আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, বনানীর ঘটনায় মামলা নিতে কেন দেরি হয়েছিল ও দায়িত্ব পালনে পুলিশের কোনো অবহেলা ছিল কি না সে বিষয়ে খতিয়ে দেখার জন্য তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছিল। গতকাল রোববার কমিটি তাদের প্রতিবেদন জমা দিয়েছে। প্রতিবেদন অনুযায়ী বনানী থানা পুলিশের গাফিলতি নয় তবে কিছু ত্রুটি-বিচ্যুতি পাওয়া গেছে। আর সে কারণেই তাঁদের ব্যাখ্যা দেওয়ার জন্য তলব করা হবে। তিনি বলেন, আদালত যখন কাউকে শাস্তি দেন তখন তাঁর আত্মপক্ষ সমর্থনের জন্য সুযোগ দেওয়া হয়। তাই তাঁদেরও ব্যাখ্যা দেওয়ার জন্য সুযোগ দেওয়া হবে। এরপর তাঁদের দেওয়া ব্যাখ্যা এবং প্রতিবেদন থেকে পাওয়া তথ্য পর্যালোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

আরও খবর : শেখ হাসিনার মদিনার উদ্দেশে রিয়াদ ত্যাগ

বনানী থানায় মামলা হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি), পুলিশ সদর দপ্তর, জেলা পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা আসামিদের গ্রেপ্তার করতে কাজ করেছেন জানিয়ে পুলিশ কমিশনার বলেন, ফলে তাঁদের গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়েছে। কাজেই এই অপরাধীদের শাস্তি নিশ্চিত করতে পুলিশের পেশাদারিত্বের কোনো গাফিলতি নেই বলে মন্তব্য করেন তিনি। একই সঙ্গে কোনো নিরপরাধ ব্যক্তি যেন শাস্তি না পায় সেসব দিক বিবেচনা করা হচ্ছে বলেও জানান পুলিশ কমিশনার।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে আছাদুজ্জামান মিয়া আশা প্রকাশ করে বলেন, আসামিদের কাছ থেকে জব্দ করা আলামতের ভিত্তিতে বিশেষজ্ঞ মতামত পেলে দ্রুত এই মামলা শেষ করা সম্ভব হবে এবং দ্রুত অভিযোগপত্র দেওয়া হবে।

এর আগে আছাদুজ্জামান তাঁর কার্যালয়ে আসন্ন রমজান মাসের নিরাপত্তা নিয়ে ট্রাফিক বিভাগের সঙ্গে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘ঈদকে সামনে রেখে রাজধানীতে কোনো চাঁদাবাজি চলবে না। আর যানজট নিরসনে সড়ক ও বিপণি-বিতানকেন্দ্রিক যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং বন্ধ করতে বেশ কিছু পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

এর আগে, ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) যুগ্ম কমিশনার (অপরাধ) কৃষ্ণপদ রায় জানিয়েছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা নিতে বিলম্ব করা ও কর্তব্য পালনে পুলিশের অবহেলা ছিল কি না, তা খতিয়ে দেখতে তদন্ত কমিটি করেছে পুলিশ।

তিন সদস্যের এই কমিটিতে প্রধান করা হয় ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনারকে (ক্রাইম অ্যান্ড অপারেশনস)। অন্য দুজন হলেন ডিএমপির গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) যুগ্ম কমিশনার ও ডিএমপির যুগ্ম কমিশনার (অপরাধ)।

এসএইচ-২৭/২২/০৫ (ন্যাশনাল ডেস্ক)

The post দু’ছাত্রী ধর্ষণ মামলা নেওয়ার ক্ষেত্রে পুলিশের গাফিলতির প্রমাণ মেলেনি appeared first on Padma News - Bangla.

]]>
217889
ইরান সব সন্ত্রাসেই জড়িত : ট্রাম্প https://padmanews.com/bangla/international/217887/iran-is-involved-in-all-terrorism-trump/ Mon, 22 May 2017 17:11:17 +0000 https://padmanews.com/bangla/?p=217887 মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইসরায়েল সফরে এসে ‘সন্ত্রাসবাদকে মদদ দেবার জন্য’ ইরানের তীব্র সমালোচনা করে অবিলম্বে তা বন্ধ করার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ইরান তার ভাষায় ‘সন্ত্রাসী এবং মিলিশিয়াদের’ সমর্থন দিচ্ছে, এবং সবখানেই সন্ত্রাসী কার্যকলাপে ইরানের জড়িত থাকার চিহ্ন দেখতে পাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। “সৈন্য, অর্থ, ও অস্ত্রের ক্ষেত্রে” এই চিহ্ন দেখা যাচ্ছে – বলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। কিন্তু […]

The post ইরান সব সন্ত্রাসেই জড়িত : ট্রাম্প appeared first on Padma News - Bangla.

]]>
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইসরায়েল সফরে এসে ‘সন্ত্রাসবাদকে মদদ দেবার জন্য’ ইরানের তীব্র সমালোচনা করে অবিলম্বে তা বন্ধ করার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ইরান তার ভাষায় ‘সন্ত্রাসী এবং মিলিশিয়াদের’ সমর্থন দিচ্ছে, এবং সবখানেই সন্ত্রাসী কার্যকলাপে ইরানের জড়িত থাকার চিহ্ন দেখতে পাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। “সৈন্য, অর্থ, ও অস্ত্রের ক্ষেত্রে” এই চিহ্ন দেখা যাচ্ছে – বলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

কিন্তু এর জবাবে ইরানের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানী বলেছেন, প্রকৃত ঘটনা হচ্ছে তার দেশ, এবং লেবাননের হেজবোল্লাহ’র মতো তাদের মিত্ররাই মধ্যপ্রাচ্যের সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াচ্ছে। রুহানি বলেন, ইরানের সহায়তা ছাড়া আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠা হবে না। কিন্তু ট্রাম্প বলেন, ইরান সন্ত্রাসীদের মদত দিচ্ছে, এবং কোনাভাবেই ইরানকে পারমাণবিক শক্তিধর হতে দেওয়া হবেনা।

আরও খবর : কেজরিওয়ালের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা জেটলির

তবে প্রেসিডেন্ট হবার পর এই প্রথম বিদেশ সফরের দ্বিতীয় গন্তব্য হিসেবে ইসরায়েলে এসে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন- ফিলিস্তিনী-ইসরায়েলি শান্তি প্রক্রিয়া নিয়েও তিনি এ সফরের সময় কথা বলবেন, এবং তিনি মনে করেন শান্তির বিরল একটা সুযোগ তৈরি হয়েছে

বিমানবন্দরেই ট্রাম্প ঘোষণা করেন, ইসরায়েল এবং ফিলিস্তিনীদের মধ্যে চুড়ান্ত শান্তিই তার লক্ষ্য। তিনি বলেন, এই অঞ্চলের মানুষের জন্য নিরাপত্তা এবং স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে আনার প্রশ্নে আমাদের সামনে এসেছে এক বিরল সুযোগ। এখন সন্ত্রাসবাদকে পরাজিত করতে হবে। শান্তি ও সমৃদ্ধির জন্য নতুন ভবিষ্যত গড়তে হবে।

কিন্তু এটা অর্জন করা সম্ভব শুধুমাত্র একসাথে মিলে কাজ করার মধ্য দিয়ে। এছাড়া আর কোন পথ নেই।
জেরুসালেম থেকে বিবিসি সংবাদদাতা জেরেমি বোওয়েন বলছেন, মার্কিন নির্বাচনে যখন প্রচারাভিযান চলছিল তখন মি. ট্রাম্প যেসব বক্তব্য দিয়েছেন, তা ইসরায়েলর ডানপন্থী রাজনীতিকদের খুবই পছন্দ ছিল।

তিনি সে সময় অধিকৃত এলাকায় ইসরায়েলি বসতির সংখ্যা বাড়ানোর পক্ষে কথা বলেছেন। ফিলিস্তিনের স্বাধীনতার দাবির বিপক্ষে কথা বলেছেন।

কিন্তু দায়িত্ব গ্রহণের পর মি. ট্রাম্পের সুর এখন বেশ নরম। আর সে কারণে তিনি শেষ পর্যন্ত কী করতে পারেন, তা নিয়ে ইসরায়েলি রাজনীতিকরা কিছুটা বিচলিত।

ফিলিস্তিনীদের সাথে শান্তির প্রশ্নে ইসরায়েলিদের শর্তের বিষয়টি মি. ট্রাম্পের সামনেই আরেকবার মনে করিয়ে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু বলেন, যে শান্তি আমরা চাই তা হতে হবে খাঁটি এবং টেকসই। এতে ইসরায়েল রাষ্ট্রকে স্বীকৃতি দিতে হবে। নিরাপত্তার চাবিকাঠি থাকতে হবে ইসরায়েলের হাতে। এবং সংঘাতের স্থায়ী অবসান হতে হবে। কিন্তু দীর্ঘস্থায়ী শান্তির প্রশ্নে দুপক্ষের মধ্যে যে সন্দেহের বাতাবরন রয়েছে সেটি ভেদ করা বেশ কঠিন কাজ।

আর দুপক্ষই সতর্কতার সাথে লক্ষ্য রাখবেন, শান্তি আনার বিনিময়ে মি. ট্রাম্প তাদেরকে ঠিক কোন্ ধরনের ত্যাগ স্বীকার করতে বলেন।

এসএইচ-২৬/২২/০৫ (আন্তর্জাতিক ডেস্ক, সূত্র : বিবিসি)

The post ইরান সব সন্ত্রাসেই জড়িত : ট্রাম্প appeared first on Padma News - Bangla.

]]>
217887
র‍্যাবের প্রশ্নবিদ্ধ অভিযানে মুক্তি পাওয়া তরুণ যা বলছেন https://padmanews.com/bangla/media-watch/217886/rab-released-a-questionnaire-about-the-young-man-who-was-released/ Mon, 22 May 2017 17:03:16 +0000 https://padmanews.com/bangla/?p=217886 নরসিংদী জেলায় জঙ্গি সন্দেহে চালানো র‍্যাবের প্রশ্নবিদ্ধ অভিযানের পর মুক্তি পাওয়া একজন তরুণ এবং অন্যদের পরিবারে সদস্যরা বলছেন, সাম্প্রতিক জঙ্গিবিরোধী অভিযানে হতাহতের ঘটনা তাদের মধ্যে তীব্র উদ্বেগ ও আতঙ্ক তৈরি করেছিল। শনিবার জেলার সদর উপজেলার একটি বাড়ি থেকে আত্মসমর্পণ করা পাঁচ জনকে হেফাজতে নিয়েছিল র‍্যাব। পরে তিনজনকে রোববার গভীর রাতে ছেড়ে দেয়। ওই ঘটনায় আটক […]

The post র‍্যাবের প্রশ্নবিদ্ধ অভিযানে মুক্তি পাওয়া তরুণ যা বলছেন appeared first on Padma News - Bangla.

]]>
নরসিংদী জেলায় জঙ্গি সন্দেহে চালানো র‍্যাবের প্রশ্নবিদ্ধ অভিযানের পর মুক্তি পাওয়া একজন তরুণ এবং অন্যদের পরিবারে সদস্যরা বলছেন, সাম্প্রতিক জঙ্গিবিরোধী অভিযানে হতাহতের ঘটনা তাদের মধ্যে তীব্র উদ্বেগ ও আতঙ্ক তৈরি করেছিল।

শনিবার জেলার সদর উপজেলার একটি বাড়ি থেকে আত্মসমর্পণ করা পাঁচ জনকে হেফাজতে নিয়েছিল র‍্যাব। পরে তিনজনকে রোববার গভীর রাতে ছেড়ে দেয়। ওই ঘটনায় আটক দুজনসহ সাতজনকে অভিযুক্ত করে সোমবার সন্ত্রাস-বিরোধী আইনে মামলা করেছে র‍্যাব।

আরও খবর : ওলামা লীগ সংগঠন চালানোর পক্ষে না আওয়ামী লীগ

জঙ্গি সন্দেহে অভিযানে আটক হওয়া একজন বাসিকুল ইসলাম। নরসিংদীর কলেজ থেকে অ্যাকাউন্টিং বিষয়ে এমবিএ পরীক্ষা সম্পন্ন করেছেন গত ১৮ই মে।

গত শনিবার সকালে কর-পরিদর্শক পদের জন্য পরীক্ষা দিয়ে ঢাকা থেকে নরসিংদীতে ফেরেন ওইদিন বিকেলে। ওইদিন বিকেলের দিকে ভাড়া করা মেস-বাড়িতে হঠাৎ বাইরে থেকে তাদের কক্ষের দরোজার ছিটিকনি বন্ধ করে দেয়া হয়।

“বিকেলের দিকে ডাল দিয়ে ভাত খাওয়ার পর সামনেই একটু জায়গা আছে, সেখানে দাঁত ব্রাশ করছিলাম। হঠাৎ দেখি বুট পরা অনেক লোক। তাদের একজন এসে আমার হাত ধরে বলে – ‘কই যান?’। তারপর আমাকে ভেতরে ঢুকিয়ে দরোজার ছিটকিনি লাগিয়ে দেন। ”

“এরপর জানালা দিয়ে দেখলাম বাইরে প্রচুর র‍্যাব-পুলিশ। তখন বুঝলাম আমাদের টার্গেট করা হয়েছে, আমাদের মেসটাকে”।

সারাদেশে সাম্প্রতিক জঙ্গি বিরোধী অভিযানে এর আগে একাধিক হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। ফলে তাদের বাসার বাইরে র‍্যাব বা পুলিশের উপস্থিতি তাদের মধ্যে উদ্বেগ আর আতঙ্ক তৈরি করে। সে ভাবেই সারারাত কেটে যায়, জানান বাসিকুল ইসলাম।

“সারারাত সজাগ ছিলাম। তিনটি কক্ষের মধ্যে ডাইনিং রুমে(খাবার ঘরে) ছিলাম আমরা। কতক্ষণ মেঝেতে বেসে ছিলাম। কতক্ষণ চেয়ারে। কেউ নামাজ পড়ছিলাম। কেউ কোরআন পড়ছিলাম”।

ইসলাম জানান, ভবিষ্যতে তার চাকরি বা অন্যক্ষেত্রে এর কোনও নেতিবাচক প্রভাব পড়বে কি-না সেটি নিয়েও উদ্বেগ কাজ করেছে তার মাঝে।

এদিকে একতলা ওই বাসাটি ভাড়া নিয়ে যে কজন বসবাস করতেন তাদের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী এবং নরসিংদীর সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা ছিলেন। বাসিকুল ইসলাম জানান, র‍্যাবের সদস্যদের কাছে তারা বারবার নিজেদের নিরপরাধ দাবি করে তথ্য পৌঁছানোর চেষ্টা করেন। তবে সকালের আগ পর্যন্ত সাড়া মেলেনি।

সকালে র‍্যাব সদস্যরা তাদের বাড়ির ভেতর থেকে খালি গায়ে বের বের হেয় আসার নির্দেশ দেন। এরপর বুলেটপ্রুফ পোশাক পরিয়ে এবং কালো কাপড়ে তাদের চোখ-মুখ ঢেকে দিয়ে গাড়িতে তোলা হয়, জানান বাসিকুল ইসলাম।

“এরপর ছোট্ট একটি সেলে আটকে রেখে কয়েক-দফা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। ওই সেলের মধ্যে একজন মানুষ লম্বা হয়ে শুতে পারবে না। একটা সময় চোখ খুলে দেয়া হয়। অনেকক্ষণ পরে আবার চোখ বেঁধে নিয়ে যাওয়া হয় একটি কক্ষে। সেখানে আমাদের আত্মীয় স্বজনরা ছিল।

তারপর আবার আমাদের তথ্য নিয়ে ছেড়ে দেয়া হয় এবং র‍্যারেব পক্ষ থেকে দু:খ প্রকাশ করা হয়”। রাত সাড়ে বারোটার পর ছাড়া পান মি. ইসলাম।

ওই বাসার অপর বাসিন্দাদের মধ্যে আবুজাফর এবং মোঃ সালাউদ্দিন নামে দুজনের কাছে বিভিন্ন পর্যায়ের শিক্ষার্থীরা পড়াশোনা করতে আসতো। তেমনই একজন স্থানীয় একটি মাদ্রাসার দশম শ্রেণির ছাত্র মাসুদুর রহমান ভেতরে আটকা পড়েন। ঘটনার পর থেকে মানসিকভাবে সে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে বলে তার পরিবার জানিয়েছে।

তার ভাই আব্দুর রহমান জানান, “এখন আসলে সে খুবই ভয় পেয়েছে। ভীত সন্ত্রস্ত অবস্থায় বের হওয়ার পর আমাদের সাথেও বেশি কথা বলেনি। ছোট মানুষ এই বয়সে এতটা মেন্টাল হ্যারাসমেন্ট(মানসিক হয়রানি) হয়েছে…। আমরা চাই সে দ্রুত স্বাভাবিক হয়ে উঠুক”।

র‍্যাবের অভিযানের খবর পেয়ে তিনি সহ আটক অন্যদের পরিবারের সদস্যরা ওই বাড়ির সামনেই সারারাত অবস্থা করেন। মি রহমান বলেন, “র‍্যাবের ওইখানে যিনি অভিযান পরিচালনা করেছেন তিনি আমাদের সকাল ৮টা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে বলেছেন। পাশেই একটি প্রাচীর ঘেরা বাড়ির সীমানার মধ্যে আমরা যারা নিকটাত্মীয় ভাইবোনরা ছিলাম তাদের রাখা হয়।সকালে তাদের নারায়ণগঞ্জ র‍্যাব-১১ এর কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।”

“পরের দিন বিকেল সাড়ে চারটার পর আমাদের ফোনে জানানো হয় আপনার ভাই নির্দোষ তাকে এসে নিয়ে যান এবং বলা হয় আমরা আন্তরিকভাবে দু:খিত”।

পরিবারের স্বজনরাই সাংবাদিকদের কাছে ভেতরে আটক থাকা তরুণদের মোবাইল ফোনের নম্বর সরবরাহ করেন, জানান মি রহমান। এছাড়া ভেতর থেকে একজন তাদের বাঁচানোর জন্য আকুতি জানিয়ে ফেসবুকে পোস্ট করেন। এভাবে মিডিয়াতেও দ্রুত এ সংক্রান্ত খবর চলে আসে।

যদিও ১৮ ঘণ্টা ঘিরে রাখার পর বাড়িটির ভেতর থেকে অস্ত্র বা সন্দেহজনক কিছুই পায়নি আইন শৃঙ্খলা বাহিনী।

এসএইচ-২৫/২২/০৫ (শায়লা রুখসানা, বিবিসি)

The post র‍্যাবের প্রশ্নবিদ্ধ অভিযানে মুক্তি পাওয়া তরুণ যা বলছেন appeared first on Padma News - Bangla.

]]>
217886
মানবের কল্যাণে প্রকৃতির অবদান হৃদয় দিয়ে কি ভেবে দেখেছি? https://padmanews.com/bangla/citizen-journalism/217884/what-is-the-natures-contribution-to-the-welfare-of-man-with-the-heart/ Mon, 22 May 2017 16:47:50 +0000 https://padmanews.com/bangla/?p=217884 প্রকৃতি মানবের কল্যাণে এ জগতে কি অবদান রাখে তা কি আমরা একবার হৃদয় দিয়ে ভেবে দেখেছি? একবার আপনার অপরূপ নয়ন দুটো কয়েক মিনিটের জন্য বন্ধ করে দেখুন তো, এবার আপনার কোমল হৃদয়ের চোখ দিয়ে ভাবুন তো কোথায় ছিলেন? কীভাবে এলেন এই সুন্দর অপরূপ সুজলা সুফলা শস্য শ্যামলা এই বৈচিত্র্যময় পৃথিবীতে কে আপনাকে, আমাকে এই পৃথিবীতে […]

The post মানবের কল্যাণে প্রকৃতির অবদান হৃদয় দিয়ে কি ভেবে দেখেছি? appeared first on Padma News - Bangla.

]]>
প্রকৃতি মানবের কল্যাণে এ জগতে কি অবদান রাখে তা কি আমরা একবার হৃদয় দিয়ে ভেবে দেখেছি? একবার আপনার অপরূপ নয়ন দুটো কয়েক মিনিটের জন্য বন্ধ করে দেখুন তো, এবার আপনার কোমল হৃদয়ের চোখ দিয়ে ভাবুন তো কোথায় ছিলেন? কীভাবে এলেন এই সুন্দর অপরূপ সুজলা সুফলা শস্য শ্যামলা এই বৈচিত্র্যময় পৃথিবীতে কে আপনাকে, আমাকে এই পৃথিবীতে আনলেন? কেনই বা আমাকে, আপনাকে তিনি সৃষ্টি করলেন? কী ছিল তার উদ্দেশ্য? নিশ্চয়ই কোন মহৎ উদ্দেশ্য রয়েছে। আপনাকে আমাকে মায়ের গর্ভে লালন-পালন, ভূমিষ্ঠ শিশু, কৈশোর, যৌবন, বৃদ্ধ বয়সে পরিণত হওয়া এসবই তো তার অবদান।

অপরূপ পৃথিবীতে মানবের কল্যাণে মহান সৃষ্টিকর্তা আলো, বাতাস, নদী নালা, সাগর মহাসাগর, পাহাড় পর্বত, গাছ পালা, কীট পতঙ্গ মানুষ, পশু পাখি আরও নানাবিধ, মানুষের কল্যাণে সবই সৃষ্টি করেছেন। মানুষের এই কল্যাণে প্রকৃতি তার জীবন যৌবন সব উজাড় করে দেয় নিঃস্বার্থভাবে অনুরূপভাবে আমরা কি প্রকৃতির সব ঋণের প্রতিদান দিতে পারি? নিশ্চয়ই না, তাহলে কী আমরা প্রকৃতির কাছে দায়বদ্ধ? প্রকৃতির এসব দায়বদ্ধতা কিছুটা হলেও পরিশোধ করিতে পারি না? যদি আমাদের হৃদয়ের চোখ দিয়ে একবার অনুভব করি তাহলে নিশ্চয়ই প্রকৃতির দান কিছুটা হলেও পরিশোধ করা যায়।

আরও খবর : বজ্রপাত, তালগাছ , বিজ্ঞান, ধর্ম ও গবেষণা

স্বামী বিবেকানন্দ দাসের উক্তি- জীবে প্রেম করে যে জন সে জন সেবিছে ঈশ্বর” আমরা যদি একটিবারের জন্য চিন্তা চেতনার পরিবর্তন ঘটাতে পারি, তাহলে মানবতার বিকাশ ঘটবে বলে আমার বিশ্বাস।

এ পৃথিবীতে কেন এত যুদ্ধ, বৈষম্য ভেদাভেদ, দ্বন্দ্ব এসবের মূল কারণ কী? স্বাভাবিকভাবে আমরা দু’চোখ দিয়ে পৃথিবী দেখি কিন্তু প্রকৃত পক্ষে মানুষের চোখ তিনটি। আমরা আমাদের হৃদয়ের চোখ দিয়ে কখনো কী কিছু অনুভব করি? একবার আপনার অন্তরের চোখ দিয়ে অবলোকন করুন তো; প্রকৃতি প্রতিনিয়ত মানবের কল্যাণে তার নিজের জীবন যৌবন নিঃস্বার্থভাবে আমাদের মাঝে বিলিয়ে দিচ্ছে।

এটা কার নির্দেশে সে এই কাজ করে চলছে। তার এই নির্দেশ দাতা কে? নিশ্চয়ই বলতে হবে মহান সৃষ্টিকর্তা। দিবারাত্রি তিনিই সংগঠিত করেন। নিঃসন্দেহে স্বীকার করতে হবে সমগ্র পৃথিবীর মালিক মহান আল্লাহ। প্রকৃতি কারো ওপর রাগ হিংসা নিজের স্বার্থে কোন কাজ করে না। সে আল্লাহর নির্দেশ প্রতি মুহূর্তে পালন করে চলছে।

কোথাও তার কোনো কার্পণ্যতা নেই তাহলে সৃষ্টির সেরা জীব হিসেবে আমরা কী পারি না, প্রকৃতির ন্যায় মানবতার কল্যাণে নিজের জীবন বিলিয়ে দিতে? আমরা আমাদের সাংসারিক জীবনে কাজ কর্ম করতে করতে এক সময় ক্লান্ত হয়ে পড়ি কিন্তু কখনো কী ভেবে দেখি, প্রকৃতি এক সময় মহান সৃষ্টিকর্তার নির্দেশে তার সকল প্রকার কার্যক্রম বন্ধ করে দিবে, তখন সমগ্র পৃথিবী হারাবে তার ভারসাম্য গতি। মূহুর্তের মধ্যে চারিদিক অন্ধকারে পরিণত হবে। মানুষ পশুপাখি কীটপতঙ্গ জীবজন্তু হারাবে তার নীড়। নদী হারাবে তার গতি, ধ্বংসপ্রাপ্ত হবে পৃথিবী। সময় হারিয়ে গেলে যেমন আর কী ফিরে পাওয়া যায়।

মহান আল্লাহ সৃষ্টির প্রতি মহানুভবতা, প্রেম ভালবাসা , মায়া মমতা এবং সর্বোপরি প্রকৃতির নিঃস্বার্থ দানের প্রতিদান হিসেবে আমরা কী আমাদের সকল ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে এ সুন্দর পৃথিবীতে সকল ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে হৃদয়ের কোমল নয়ন দিয়ে প্রকৃতির অবদানকে বরণ করে নিতে? আসুন সকল জাতি ধর্ম বৈষম্য ভুলে সৃষ্টির সেরা জীব হিসাবে পরিচয় বহাল রেখে, সকল দ্বন্দ্বের অবসান ঘটিয়ে যার যার অবস্থানে থেকে, শান্তি শৃঙ্খলা ও কল্যাণময় বাসযোগ্য পৃথিবী গড়ে তুলি। এই হোক আমাদের সকলের প্রত্যাশা, আমি সকল জাতীর মঙ্গল কামনা করি, দীর্ঘজীবী হোক পৃথিবী।

এসএইচ-২৪/২২/০৫ (মো. মহসিন শেখ। পরিবর্তন ডটকম)

The post মানবের কল্যাণে প্রকৃতির অবদান হৃদয় দিয়ে কি ভেবে দেখেছি? appeared first on Padma News - Bangla.

]]>
217884
কবর-দাহ নয়, নয়া পদ্ধতিতে মরদেহ ‘গলিয়ে ফেলা’ https://padmanews.com/bangla/special/217882/not-grave-melting-the-body-in-a-new-way/ Mon, 22 May 2017 16:39:21 +0000 https://padmanews.com/bangla/?p=217882 মানুষের মৃত্যুর পর ধর্মবিশ্বাস অনুযায়ী মৃতদেহটিকে কবর দেয়া হয়, বা দাহ করা হয়। বহু প্রাচীন কাল থেকে বিভিন্ন সভ্যতায় এটাই চলে আসছে। কিন্তু আমেরিকা এবং কানাডায় নতুন এক বিকল্প চালু হয়েছে – যাকে বলা হচ্ছে ‘এ্যালকালাইন হাইড্রোলাইসিস’ – যার মূল কথা হলো একটি ক্ষারজাতীয় তরলের মধ্যে মৃতদেহটি দ্রবীভূত করে ফেলা। কিছুদিনের মধ্যেই মৃতদেহ সৎকারের এ […]

The post কবর-দাহ নয়, নয়া পদ্ধতিতে মরদেহ ‘গলিয়ে ফেলা’ appeared first on Padma News - Bangla.

]]>
মানুষের মৃত্যুর পর ধর্মবিশ্বাস অনুযায়ী মৃতদেহটিকে কবর দেয়া হয়, বা দাহ করা হয়। বহু প্রাচীন কাল থেকে বিভিন্ন সভ্যতায় এটাই চলে আসছে। কিন্তু আমেরিকা এবং কানাডায় নতুন এক বিকল্প চালু হয়েছে – যাকে বলা হচ্ছে ‘এ্যালকালাইন হাইড্রোলাইসিস’ – যার মূল কথা হলো একটি ক্ষারজাতীয় তরলের মধ্যে মৃতদেহটি দ্রবীভূত করে ফেলা। কিছুদিনের মধ্যেই মৃতদেহ সৎকারের এ পদ্ধতি ব্রিটেনে চালু করা হবে।

অনেকে একে বলছেন পরিবেশ-বান্ধব সৎকার বা ‘গ্রিন ক্রিমেশন’ – যাতে কবরের জন্য জায়গা খরচ হবে না, মৃতদেহ পোড়ানোর জন্য কাঠ, আগুন বা ধোঁয়া বা বিদ্যুত খরচের ঝামেলাও থাকবে না।

আরও খবর : খুলনার যাত্রী ১ জন : কলকাতা-খুলনা-ঢাকা বাস সার্ভিস শুরু

এতে একটি শক্তিশা্লী ক্ষারজাতীয় দ্রবণের মধ্যে মৃতদেহটি ডুবিয়ে দেয়া হয় – যাতে কয়েক ঘন্টার মধ্যে সমস্ত মাংসপেশী গলে গিয়ে একটা স্বচ্ছ বাদামি তরল পদার্থে পরিণত হয়ে যায়। এরকম ১৪টি সৎকার কেন্দ্র এখন বিভিন্ন দেশে চালু রয়েছে।

এসব কেন্দ্রের কর্মকর্তারা বলছেন, যারা কবর দিতে চান না, তাদের মধ্যে ৮০ শতাংশই এখন এটা পছন্দ করছেন – যা তাদের বেশ অবাক করেছে।

এ্যালকালাইন হাইড্রোলাইসিস মেশিনটি তৈরি করেছে রেসোমেশন নামে একটি ব্রিটিশ কোম্পানি। তারা বার্মিংহ্যাম শহরের কাছে এরকমই একটি মেশিন বসাতে যাচ্ছে এ বছরেরই শেষ নাগাদ।

মূল যন্ত্রটি হচ্ছে ৬ ফিট উচু, চার ফিট চওড়া, এবং ১০ ফিট গভীর। সামনের দিকে একটি গোল দরজা অনেকটা ব্যাংকের ভল্ট বা সাবমেরিনের দরজার মতো।

একটি ট্রে-তে শুইয়ে মৃতদেহটি মেশিনের ভেতরে ঢুকিয়ে দেয়া হয়, এবং দরজা বন্ধ করে দেয়ার পর তা উচ্চ তাপে একটি শক্তিশালী হাইড্রক্সাইড দ্রবণে ডুবিয়ে দেয়া হয়।

আমেরিকার মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যের স্টিলওয়াটারের এমনিএকটি সৎকারকেন্দ্রের কর্মকর্তা জেসন ব্রাডশ’ বলছেন, একটা কবরে মৃতদেহ যেভাবে প্রাকৃতিকভাবে পচেগলে মাটির সাথে মিশে যায়, এই মেশিনের ভেতরে ঠিক সেই প্রক্রিয়াটাই ঘটে – কিন্তু তা ঘটে কৃত্রিমভাবে, এবং অনেক দ্রুতগতিতে।

একটি মৃতদেহের হাড় ছাড়া পুরো শরীরটা তরলে পরিণত হতে সময় লাগে মাত্র ৯০ মিনিট থেকে চার ঘন্টা পর্যন্ত – বলছিলেন মি. ব্রাডশ।

এর পর দরজা খুলে হাড়গুলো সংগ্রহ করা হয় এবং তা আরেকটি যন্ত্রের সাহায্যে ময়দার মতো চূর্ণে পরিণত করা হয়।

ডাচ গবেষক এলিজাবেথ কেইৎজার বলছেন, পরিবেশগত প্রতিক্রিয়া পরীক্ষা করে দেখা গেছে কবর বা দাহের তুলনায় এর প্রতিক্রিয়া অনেক অনেক কম। খরচের দিক থেকেও এ্যালকালাইন হাইড্রোলাইসিসের খরচ – কবর বা দাহের তুলনায় – অতি সামান্য।

এসএইচ-২৩/২২/০৫ (অনলাইন ডেস্ক, সূত্র : বিবিসি)

The post কবর-দাহ নয়, নয়া পদ্ধতিতে মরদেহ ‘গলিয়ে ফেলা’ appeared first on Padma News - Bangla.

]]>
217882
ওলামা লীগ সংগঠন চালানোর পক্ষে না আওয়ামী লীগ https://padmanews.com/bangla/media-watch/217880/awami-league-is-not-in-favor-of-running-the-olema-league-organization/ Mon, 22 May 2017 16:10:05 +0000 https://padmanews.com/bangla/?p=217880 আওয়ামী ওলামা লীগ নামে কোনো সংগঠন চালানোর পক্ষে না ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। একাধিক ভাগে বিভক্ত এই সংগঠনটি আওয়ামী লীগের সহযোগী বা ভ্রাতৃপ্রতিম কোনো সংগঠন নয়। আওয়ামী লীগ সমর্থক সংগঠন হিসেবে এটি কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। এবার আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা এই সংগঠনটির কার্যক্রম স্থগিত করার নির্দেশ দিয়েছেন বলে দলের দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে। সূত্র জানায়,  সোমবার […]

The post ওলামা লীগ সংগঠন চালানোর পক্ষে না আওয়ামী লীগ appeared first on Padma News - Bangla.

]]>
আওয়ামী ওলামা লীগ নামে কোনো সংগঠন চালানোর পক্ষে না ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। একাধিক ভাগে বিভক্ত এই সংগঠনটি আওয়ামী লীগের সহযোগী বা ভ্রাতৃপ্রতিম কোনো সংগঠন নয়। আওয়ামী লীগ সমর্থক সংগঠন হিসেবে এটি কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। এবার আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা এই সংগঠনটির কার্যক্রম স্থগিত করার নির্দেশ দিয়েছেন বলে দলের দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে।

সূত্র জানায়,  সোমবার ঢাকার ধানমন্ডিতে দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে আওয়ামী লীগের সম্পাদকমণ্ডলীর একটি সভায় ধর্মীয় ব্যক্তিত্বদের নিয়ে নতুন একটি সংগঠন দাঁড় করানোর বিষয়ে আলোচনা হয়। অর্থাৎ, আওয়ামী ওলামা লীগ আর থাকছে না।

আরও খবর : ভারতের জাল টাকা বানানো হচ্ছে বাংলাদেশে!

ওলামা লীগ নিজেদের আওয়ামী লীগ সমর্থক হিসেবে প্রচার করলেও তাদের অনেক দাবিদাওয়া বিভিন্ন সময় প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে। সংগঠনটি কয়েক বছর ধরে পাঠ্যপুস্তকে ইসলামবিরোধী রচনা ও পাঠ্যক্রম আছে বলে দাবি করে তা বাদ দেওয়ার দাবি তোলে। একই দাবি তুলেছিল হেফাজতে ইসলামও। বর্তমান শিক্ষানীতিকে ইসলামবিরোধী আখ্যাও দেয় ওলামা লীগ। তারা মেয়েদের বিয়ের বয়স নির্ধারণে বিরোধিতা, ধর্ম অবমাননার জন্য মৃত্যুদণ্ডের আইন প্রণয়নের দাবি, পয়লা বৈশাখবিরোধী বক্তৃতা-বিবৃতি দিয়েছে; যা হেফাজতে ইসলামসহ অন্য ধর্মীয় সংগঠনের কর্মসূচির সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ। এ ছাড়া সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে ভাস্কর্য অপসারণেও বিবৃতি দেয় সংগঠনটি।

আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল সূত্র বলছে, ওলামা লীগের ব্যাপারে দলীয় প্রধান শেখ হাসিনাসহ কেন্দ্রীয় নেতাদের অনেকেই বিরক্ত। আজ কেন্দ্রীয় নেতাদের প্রায় সবাই ওলামা লীগের বিষয়ে নিজেদের আপত্তির কথা জানান। তাঁরা নতুন করে ইসলামি ব্যক্তিত্বদের নিয়ে একটি নতুন সংগঠন গঠনের পরামর্শ দেন। এ সময় ধর্মবিষয়ক সম্পাদক শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ জানান, দলীয় প্রধান শেখ হাসিনা ওলামা লীগের কার্যক্রম স্থগিত করে দিয়েছেন। এরপরই নতুন সংগঠন দাঁড় করানোর বিষয়ে আলোচনা হয়।

জানতে চাইলে শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ বলেন, ওলামা লীগ আওয়ামী লীগের কোনো সংগঠন নয়। দলীয় প্রধান শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগের নামে কোনো কার্যক্রম না চালাতে ওলামা লীগের নেতাদের নির্দেশনা দিয়েছেন। এখন মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রকৃত ধর্মীয় ব্যক্তিত্বদের নিয়ে নতুন একটি সংগঠন দাঁড় করানোর বিষয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে।

আওয়ামী লীগের গঠনতন্ত্রে না থাকলেও কয়েকজন মন্ত্রী ও দলের কিছু কেন্দ্রীয় নেতার ছত্রচ্ছায়ায় গড়ে ওঠা আওয়ামী ওলামা লীগ নামে দুটি গ্রুপের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। বিভিন্ন সময়ে উভয় গ্রুপের কিছু কর্মসূচিতে দলের কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতাকে উপস্থিত থাকতে দেখা যায়।

ওলামা লীগের একটি অংশের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক দাবিদার যথাক্রমে মাওলানা মুহাম্মদ আখতার হোসাইন বুখারী ও মাওলানা মো. আবুল হাসান শেখ শরীয়তপুরি। অপর অংশের সভাপতি মাওলানা ইলিয়াস হোসাইন হেলালী ও সাধারণ সম্পাদক বেলাল হোসেন।

২০১৫ সালের অক্টোবরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ওলামা লীগের দুই অংশ মারামারিতে লিপ্ত হয়। এর আগের মাসে বায়তুল মোকাররম মসজিদের দক্ষিণ গেটে ওলামা লীগের একাংশের সভাপতি ইলিয়াস বিন হেলালীকে কুপিয়ে জখম করে দুর্বৃত্তরা। এসব হামলার পেছনে সংগঠনের কোন্দলকেই দায়ী করেন আওয়ামী লীগের নেতারা।

ওলামা লীগের উভয় পক্ষের আওয়ামী লীগের নীতি-আদর্শের পক্ষে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাদের নেত্রী বলে দাবি করলেও তাদের বক্তৃতা-বিবৃতি ও কার্যক্রমের সঙ্গে সাম্প্রদায়িক রাজনীতির মিল পাওয়া যায়। সংগঠনটির উভয় পক্ষই ২৩ বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়কে তাদের দলীয় কার্যালয় বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে প্রচার করছে।

আওয়ামী লীগের গঠনতন্ত্রের ‘লক্ষ্য, উদ্দেশ্য, মূলনীতি ও উন্নয়ন দর্শন’ অংশে বলা হয়েছে, ‘মহান মুক্তিযুদ্ধের ভেতর দিয়ে অর্জিত সংবিধানে বিধৃত চার রাষ্ট্রীয় মূলনীতি বাঙালি জাতীয়তাবাদ, গণতন্ত্র, ধর্মনিরপেক্ষতা ও সমাজতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা, সকল ধর্মের সমান অধিকার নিশ্চিতকরণ ও অসাম্প্রদায়িক রাজনীতি, সাম্য ও সামাজিক ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা হবে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের অভীষ্ট লক্ষ্য।’

জানতে চাইলে ওলামা লীগের একাংশের সাধারণ সম্পাদক মো. আবুল হাসান শেখ শরীয়তপুরি বলেন, ওলামা লীগের কার্যক্রম বন্ধ হয়নি। গত শনিবারও সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে ভাস্কর্য অপসারণসহ নানা দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেছে। নতুন সংগঠন দাঁড় করানোর বিষয়ে তিনি বলেন, নতুন সংগঠনে তাঁরা অংশ হবেন। তাঁদের না নেওয়া হলে কী করবেন—জানতে চাইলে তিনি বলেন, দুর্দিনে তাঁরা আওয়ামী লীগের পক্ষে মাঠে ছিলেন। এখন না নিলে আলোচনা করে করণীয় ঠিক করবেন।

এসএইচ-২২/২২/০৫ (আনোয়ার হোসেন, প্রথম আলো)

The post ওলামা লীগ সংগঠন চালানোর পক্ষে না আওয়ামী লীগ appeared first on Padma News - Bangla.

]]>
217880
যে তল্লাশির হিসাব মেলে না https://padmanews.com/bangla/people-thought/217879/the-findings-do-not-match-the-findings/ Mon, 22 May 2017 15:50:27 +0000 https://padmanews.com/bangla/?p=217879 বিএনপির চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে পুলিশি অভিযানের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য এখনো স্পষ্ট নয়। সরকার বিষয়টি খোলাসা করে বললে সেগুলো অর্জিত হয়েছে কি না, তার একটা মূল্যায়ন করা যেত। তবে যতটুকু অনুমান করা যায়, তাতে এই পুলিশি তল্লাশি শুধু যে ব্যর্থ হয়েছে, তা নয় বরং এতে সরকার এবং ক্ষমতাসীন দলের রাজনৈতিক ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। অবশ্য কর্তৃপক্ষের কারও যদি […]

The post যে তল্লাশির হিসাব মেলে না appeared first on Padma News - Bangla.

]]>
বিএনপির চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে পুলিশি অভিযানের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য এখনো স্পষ্ট নয়। সরকার বিষয়টি খোলাসা করে বললে সেগুলো অর্জিত হয়েছে কি না, তার একটা মূল্যায়ন করা যেত। তবে যতটুকু অনুমান করা যায়, তাতে এই পুলিশি তল্লাশি শুধু যে ব্যর্থ হয়েছে, তা নয় বরং এতে সরকার এবং ক্ষমতাসীন দলের রাজনৈতিক ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

অবশ্য কর্তৃপক্ষের কারও যদি রাজনৈতিক অস্থিরতা সৃষ্টির উদ্দেশ্যে সংসদের বাইরে থাকা বিরোধী দলকে উসকানি দেওয়াই লক্ষ্য হয়ে থাকে, তাহলে ভিন্ন কথা। সে রকমটি হয়ে থাকলে মানতেই হবে তাঁরা কিছুটা সফল হয়েছেন।

আরও খবর : কৃষকের চিন্তায় জাতীয় বাজেট কীভাবে এল?

পুলিশি অভিযানের লক্ষ্য সব সময়ই হওয়া উচিত আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা। সুতরাং বেআইনি বা অপরাধমূলক কিছু ঘটে থাকলে সে ক্ষেত্রে ঘটনাস্থল যেখানেই হোক না কেন, সেখানে পুলিশি অভিযানকে নিঃশর্তে সমর্থন করতে হয়। পুলিশ বা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী অভিযান পরিচালনা করে অপরাধীকে আটক এবং অপরাধের আলামত উদ্ধারের উদ্দেশ্যে। পুলিশের ভাষ্য অনুযায়ী, পুলিশ খালেদা জিয়ার কার্যালয়ে গিয়েছিল নাশকতামূলক কাজের ক্ষতিকর জিনিসপত্র উদ্ধারের জন্য। কিন্তু আড়াই ঘণ্টার অভিযানের ফলাফল তাদের তল্লাশি প্রতিবেদনের কথায় ‘শূন্য’।

অভিযান পরিচালনাকারী পুলিশ বলেছে, তাদের কাছে গোপন তথ্য ছিল যে ওই ঠিকানায় ক্ষতিকর প্রচারসামগ্রী মজুত করা হয়েছে।

তারা অভিযান পরিচালনার জন্য আদালতের ওয়ারেন্ট বা আদেশ নিয়ে সেখানে তল্লাশি চালাতে গেছে। তল্লাশি শেষ হওয়ার পর পুলিশ বিএনপির ওই দপ্তরের প্রতিনিধিদের কাছে যে লিখিত চিঠি ও কাগজপত্রের কপি দিয়ে এসেছে, তাতে দেখা যায় গুলশান থানার একটি সাধারণ ডায়েরির ওপর ভিত্তি করে আদালতের অনুমোদন নেওয়া হয়েছে। তবে গুলশান থানায় ডায়েরি করেছেন কে, তাঁর নাম-ঠিকানা ওই সব কাগজপত্রে নেই। পুলিশের এসব কাগজপত্র ও বক্তব্যে মোটামুটিভাবে যে তথ্য প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করা হয়েছে তা হচ্ছে, তারা সবকিছুই করেছে আইনমাফিক।

এসব বিবরণ কয়েকটি খুব সাধারণ প্রশ্নের জন্ম দিচ্ছে। প্রশ্নগুলো এ রকম:

১. সাধারণ ডায়েরি করলেন কে? নাম-পরিচয়হীন কারও পক্ষে এ ধরনের ডায়েরি করার সুযোগ আছে কি? ধর্ষণের শিকার দুই ছাত্রীর বনানী থানায় মামলা নেওয়ায় পুলিশের গাফিলতির বহুল আলোচিত ঘটনা স্মরণ করলে এ কথা বিশ্বাস করা কঠিন যে একজন সাবেক প্রধানমন্ত্রী এবং বৃহৎ একটি রাজনৈতিক দলের প্রধানের বিরুদ্ধে অজ্ঞাতনামা কেউ চাইলেই সাধারণ ডায়েরি করতে পারেন।

২. এই সাধারণ ডায়েরিকারী কি আসলে সরকারের কোনো গোয়েন্দা সংস্থার সদস্য, যাঁর পরিচয় গোপন রাখার প্রয়োজনে অজ্ঞাতনামা হিসেবে তা নথিবদ্ধ করা হয়েছে? অবশ্য একটি খবরে বলা হচ্ছে যে গুলশান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে একটি নোট লিখেছিলেন এবং সেই নোটটিকেই পরে সাধারণ ডায়েরিতে রূপান্তরিত করা হয় (দৈনিক যুগান্তর)। অর্থাৎ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীই এ ক্ষেত্রে অভিযোগকারী, অন্য কেউ নয়?

৩. শনিবার সাপ্তাহিক ছুটির দ্বিতীয় দিন। সাপ্তাহিক ছুটির দিনগুলোতে সাধারণত ম্যাজিস্ট্রেট আদালত কাজ করেন বিশেষ প্রয়োজনে। যার মানে হচ্ছে সরকারি কাজের দিন (বৃহস্পতিবার) পর্যন্ত পুলিশের কাছে এ ধরনের কোনো গোয়েন্দা তথ্য ছিল না। সম্ভবত শুক্রবার দিনের বেলায়ও তাদের হাতে এ ধরনের কিছু আসেনি। শুক্রবার রাতের সাধারণ ডায়েরি ধরে শনিবার খুব সকালে তাই বিশেষ ব্যবস্থায় আদালত বসিয়ে এই তল্লাশির অনুমতি নেওয়া হয়। পুলিশের কাছে তাহলে কী এমন গুরুতর তথ্য ছিল যে বিশেষ ব্যবস্থায় এই আদালত বসাতে হয়েছিল?

৪. বিএনপির একাধিক নেতার নামে অনেক সংখ্যায় মামলা থাকার কথা সর্বজনবিদিত। সেসব মামলায় কেউ গরহাজির থাকলে আসামি গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশ কখনো ওই কার্যালয়ে গেছে, এ রকম কোনো রেকর্ডের কথা আমাদের জানা নেই। তাহলে রাজনৈতিক বিতর্কের জন্ম দিতে পারে, এ রকম একটি অভিযান পরিচালনার সিদ্ধান্ত কে বা কারা নিলেন?

৫. এটি কি সরকারের রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত নাকি কোনো একটি গোষ্ঠীর উদ্দেশ্যপ্রণোদিত পদক্ষেপ?

তল্লাশির ফল যেহেতু শূন্য, সেহেতু বলা যায় যে পুলিশের পাওয়া কিংবা সাধারণ ডায়েরির তথ্য ছিল খুবই ঠুনকো। সরকার যে ঠুনকো অজুহাতে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে এ ধরনের পদক্ষেপ কখনোই নেয় না, তা নয়। তবে এ ধরনের হয়রানিমূলক ঘটনা ঘটানোর সিদ্ধান্ত সাধারণত যেসব উদ্দেশ্যে নেওয়া হয়, তার একটি হচ্ছে নাজুক অবস্থায় থাকা প্রতিপক্ষকে ভয় দেখানো ও চাপের মধ্যে রাখা। অন্য আরেকটি উদ্দেশ্যেও এ ধরনের উসকানিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হতে পারে, যাতে করে অন্য কোনো স্পর্শকাতর বিষয় থেকে সবার দৃষ্টি সরিয়ে দেওয়া যায়। শনিবার বিএনপির চেয়ারপারসনের দপ্তরে পরিচালিত তল্লাশির ক্ষেত্রে এর কোনটি ঘটেছে, তা মোটেও স্পষ্ট নয়।

বিএনপিকে ভয় দেখানোই যদি লক্ষ্য হয়ে থাকে তাহলে সেটা খুব একটা সুচিন্তিত পদক্ষেপ হয়েছে বলে মনে হয় না। দলটির ভয়ের জায়গা অন্যখানে। ২০১৪ সালের পর থেকে এ বিষয়ে তাদের যথেষ্ট শিক্ষা হয়েছে বলেই আমাদের ধারণা। পুলিশি ধরপাকড়, মামলা, গুম, খুন ইত্যাদির কারণে ভয়ে এখনো অনেকেই এলাকাছাড়া। মামলার হাজিরা দিতে দিতে খালেদা জিয়া নিজেও যেমন হয়রান, তাতে আর অন্যদের কথা আলোচনায় না আনলেও চলে। এই তিক্ত অভিজ্ঞতার কারণেই এখন তাঁরা আর অনুমতি ছাড়া রাস্তায় নামেন না। তাঁদের চেষ্টা এখন আইন মেনে যতটা রাজনীতি করা যায়।

তাহলে কি সরকার নিজের কোনো দুর্বলতা আড়াল করতে চাইছে? বিএনপির ওপর নতুন ঝামেলা চাপানো গেলে ও রাজনীতির আলোচনা ভিন্নখাতে মোড় নিলে সরকার কি বিশেষ কোনো সুবিধা পেতে পারে? এই দুই সম্ভাবনার বাইরে আরও একটি কারণ থাকতে পারে।

কিছুদিন আগে প্রকাশিত এক খবরে বলা হয়েছিল যে একটি মানহানির মামলায় খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হয়েছে। ওই মামলায় সমনের জবাব না দেওয়ায় আদালত পরোয়ানাটি জারি করেন। আমরা স্মরণ করতে পারি, ২০১৫ সালে সংসদে প্রধানমন্ত্রী এক প্রশ্নের জবাবে বলেছিলেন যে নাশকতার মামলায় আদালতের ওয়ারেন্ট থানায় পৌঁছালেই তাঁকে গ্রেপ্তার করা হবে। গত বছর আবারও খবর প্রকাশিত হয়, খালেদা জিয়াকে গ্রেপ্তারের পরোয়ানা গুলশান থানায় পৌঁছেছে এবং তাঁকে যেকোনো সময় গ্রেপ্তার করা হবে (কালের কণ্ঠ, ৪ এপ্রিল ২০১৬)।

তাঁর আইনজীবীরা জানিয়েছেন, এখন তাঁর বিরুদ্ধে মোট ৩৫টি মামলা আছে। এর মধ্যে অধিকাংশই নাশকতা ও মানহানির মামলা। দুর্নীতির মামলা পাঁচটি। এখন কোনো একটি মামলায় কোনো একদিন আদালতে হাজির না হওয়ার কারণে পরোয়ানা জারি হওয়া অস্বাভাবিক কিছু নয়। সে রকম ক্ষেত্রে যেহেতু খালেদা জিয়া গুলশান থানার বাসিন্দা, সেহেতু ধরে নেওয়া যায় পরোয়ানাটি তামিলের দায়িত্বও পড়বে গুলশান থানার ওপর। সুতরাং খালেদা জিয়াকে গ্রেপ্তারের একটি মহড়া হিসেবে তাঁর কার্যালয়ে তল্লাশি চালানোর সম্ভাবনাও নাকচ করে দেওয়া যায় না। হতে পারে মহড়াটির মধ্য দিয়ে পুলিশ সম্ভাব্য গ্রেপ্তারের ক্ষেত্রে কী ধরনের বাধার মুখে পড়তে পারে, তা যাচাই করে দেখল।

২.

খারাপ খবর চাপা দেওয়ার জন্য নানা ধরনের ফন্দি-ফিকির খোঁজা মানুষের স্বভাবজাত একটি প্রবণতা। রাজনৈতিক দল-সরকার-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান কেউ এর ব্যতিক্রম নয়। বিশ্বের উন্নত দেশগুলোতেও দেখা যায় বিব্রতকর তথ্য চেপে রাখা অথবা যখন মানুষ অন্য কিছুতে মগ্ন থাকবে, সে রকম সময়ে প্রকাশ করার কৌশল অনুসরণ করা হয়ে থাকে। এই কৌশল রপ্ত করার বিষয়টি রীতিমতো একটি শিল্পের পর্যায়ে উন্নীত হয়েছে এবং জনসংযোগ বিশেষজ্ঞরা এ ক্ষেত্রে বেশ ভালোই পেশাদারি লাভ করেছেন।

কিছুদিন ধরেই আমরা দেখছি যে বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর রাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প একের পর এক বিতর্কের জন্ম দিয়ে চলেছেন। মূলত রাশিয়ার সঙ্গে তাঁর কী ধরনের সম্পর্ক ছিল বা আছে, তা-ই এই বিতর্কের বিষয়। যুক্তরাষ্ট্রের অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে বেকায়দায় পড়ায় তিনি এখন তাঁর ভাবমূর্তি উদ্ধারে বিদেশ সফরে বেরিয়েছেন। তা–ও একটি বা দুটি নয়, একসঙ্গে ছয়টি দেশে।

চরম ইসলামবিদ্বেষী বক্তব্য ও নীতির (ছয়টি দেশের নাগরিকদের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা) জন্য বিশ্বজুড়ে সমালোচিত যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তাঁর প্রথম গন্তব্যই বেছে নিয়েছেন ইসলামের পবিত্রতম স্থান যে দেশে, সেই সৌদি আরবকে। সেখানে তিনি মিত্র হিসেবে পেয়েছেন সৌদি বাদশাহকে। সৌদি বাদশাহ আবার সেখানে আমন্ত্রণ জানিয়ে সমবেত করেছেন ৫০টি দেশের সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধানদের।

ট্রাম্প এরপর যাবেন ইহুদি রাষ্ট্র ইসরায়েলে। ইসরায়েল-ফিলিস্তিন সংঘাতে তিনি নিরপেক্ষ মধ্যস্থতাকারীর ইমেজ গড়ে তুলতে সেখান থেকে যাবেন পশ্চিম তীরে ফিলিস্তিন এলাকায়। এরপর যাবেন ইউরোপে। খ্রিষ্টধর্মের আধ্যাত্মিক গুরু পোপের সঙ্গে দেখা করবেন ভ্যাটিকানে। ফলে একযাত্রায় তিনটি ধর্মের অনুসারীদের কাছে নিজেকে গ্রহণযোগ্য করার এক নতুন চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করেছেন তিনি।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের এরপর যাওয়ার কথা ব্রাসেলসে উত্তর আটলান্টিক সামরিক জোট ন্যাটোর সদর দপ্তর এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদর দপ্তরে। অথচ নির্বাচনের আগে তিনি ন্যাটোকে একটি সেকেলে (obsolete) জোট বলে অভিহিত করেছিলেন। একইভাবে, ইউরোপীয় ইউনিয়ন যাতে ভেঙে যায় সে জন্য তিনি ব্রেক্সিটের যেমন প্রশংসা করেছেন, তেমনি সমর্থন জানিয়েছিলেন ফ্রান্সের ইউরোপবিরোধী কট্টর জাতীয়তাবাদী মারি লো পেনকে।

কিন্তু নিউইয়র্ক টাইমস শনিবার তার পাঠকদের স্মরণ করিয়ে দিয়েছে যে প্রেসিডেন্ট নিক্সন যখন দেশের ভেতরে ওয়াটারগেট কেলেঙ্কারিতে বিপর্যস্ত, তখন ভাবমূর্তি উদ্ধারে ঠিক একই ধরনের বিদেশ সফরে গিয়েছিলেন। কিন্তু তাঁর শেষরক্ষা হয়নি।

৩.

বাংলাদেশের রাজনীতিতে প্রতিদ্বন্দ্বীদের প্রতিশোধপরায়ণতা নতুন কিছু নয়। রাজনৈতিক দলের কার্যালয়ে পুলিশি অভিযানের দৃষ্টান্ত অতীতেও রয়েছে। বিএনপির নয়াপল্টনের কার্যালয়ে এর আগে একাধিকবার পুলিশি অভিযান হয়েছে। ওই কার্যালয়টি মাসের পর মাস পুলিশ সিলগালা করেও রেখেছিল। খালেদা জিয়া যখন প্রধানমন্ত্রী ছিলেন সে সময়ে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে পুলিশি অভিযানের ছবিও পাঠকদের অনেকেরই মনে থাকার কথা। কিন্তু রাজনৈতিক দলের কার্যালয়ে পুলিশি অভিযান কখনোই কাজে আসেনি। বিএনপির প্রধানের কার্যালয়ে শনিবারের নাটকীয় অভিযানের ফলাফল পুলিশের খাতায় শূন্য লেখা থাকলেও সরকারের জন্য কিন্তু তা নেতিবাচক হয়েই থাকবে।

এসএইচ-২১/২২/০৫ (কামাল আহমেদ: সাংবাদিক। প্রথম আলো। লেখকের নিজস্ব মতামত। এই মতামতের সাথে আমাদের কোন সম্পৃক্ততা নেই)

The post যে তল্লাশির হিসাব মেলে না appeared first on Padma News - Bangla.

]]>
217879
ধর্ষণকারীদের হাতেনাতে ধরতে অভিনব চপ্পল https://padmanews.com/bangla/exclusive/217875/fresh-slippers-to-catch-the-rapists/ Mon, 22 May 2017 15:43:37 +0000 https://padmanews.com/bangla/?p=217875 ধর্ষণ থেকে নিজেকে রক্ষা করতে বা ধর্ষণকারীদের হাতেনাতে ধরতে অভিনব চপ্পল তৈরি করেছে ১৭ বছরের এক কিশোর। নারীদের জন্য তৈরি ওই চপ্পলের নাম দেওয়া হয়েছে ‘ইলেকট্রোশু’। সোমবার ভারতীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে জানানো হয়, ধর্ষণ থেকে আত্মরক্ষার জন্য দেশটির হায়দরাবাদের সিদ্ধার্থ মণ্ডলা নামের এক কিশোর ‘ইলেকট্রোশু’ নামের চপ্পলটি তৈরি করেছে। স্কুলে পদার্থবিজ্ঞান পড়ার সময়ের জ্ঞান আর নিজের […]

The post ধর্ষণকারীদের হাতেনাতে ধরতে অভিনব চপ্পল appeared first on Padma News - Bangla.

]]>
ধর্ষণ থেকে নিজেকে রক্ষা করতে বা ধর্ষণকারীদের হাতেনাতে ধরতে অভিনব চপ্পল তৈরি করেছে ১৭ বছরের এক কিশোর। নারীদের জন্য তৈরি ওই চপ্পলের নাম দেওয়া হয়েছে ‘ইলেকট্রোশু’।

সোমবার ভারতীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে জানানো হয়, ধর্ষণ থেকে আত্মরক্ষার জন্য দেশটির হায়দরাবাদের সিদ্ধার্থ মণ্ডলা নামের এক কিশোর ‘ইলেকট্রোশু’ নামের চপ্পলটি তৈরি করেছে। স্কুলে পদার্থবিজ্ঞান পড়ার সময়ের জ্ঞান আর নিজের কিছু কোডিং দক্ষতা দিয়েই সিদ্ধার্থ চপ্পলটি তৈরি করেছে।

আরও খবর : স্বামী ওমের উপর কিল-চড়-ঘুষি! (ভিডিও)

ইলেকট্রোশুর ব্যবহার নিয়ে সিদ্ধার্থর ভাষ্য, কোনো নারীকে কেউ ধর্ষণের চেষ্টা করলেই এই চপ্পলের মাধ্যমে তাঁকে আটক করা যাবে এবং ওই নারী নিজেকে ওই ব্যক্তির হাত থেকে রক্ষা করতে পারবেন। চপ্পলটিতে বিশেষ ধরনের একটি সার্কিট ও রিচার্জেবল ব্যাটারি বসানো আছে।

হাঁটলেই এটা চার্জ নেবে। যে যত বেশি হাঁটবেন, চপ্পলটি তত বেশি চার্জ ধরে রাখবে। এটাকে ‘পিয়েজোইলেকট্রিক ইফেক্ট’ বলে। কেউ ধর্ষণের চেষ্টা করলে পায়ের এই চপ্পলটি দিয়ে ওই ব্যক্তিকে স্পর্শ করলেই তাঁর শরীরে ০.১ অ্যাম্পিয়ার বিদ্যুৎ প্রবাহিত হবে। এ ছাড়া নিমেষে এ-সংক্রান্ত একটি জরুরি বার্তা স্থানীয় থানা ও ওই নারীর পরিবারের সদস্যদের মোবাইলে চলে যাবে। এতে ধর্ষণের তালে থাকা ওই ব্যক্তিকে সহজেই ধরে ফেলা যাবে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ইতিমধ্যে চপ্পলটির পেটেন্ট নেওয়ার জন্য সিদ্ধার্থ মণ্ডলা আবেদন করেছে। এখন চলছে চপ্পলটির বাজার যাচাইয়ের প্রক্রিয়া।

সিদ্ধার্থ মণ্ডলা বলেছে, ‘চপ্পলটির পেটেন্ট পাওয়ার পর আমি এটার নকশা কীভাবে আরও উন্নত করা যায়, সে চেষ্টা করব। ২০১২ সালে দিল্লিতে নির্ভয়াকাণ্ডের পর নারীদের আত্মরক্ষার জন্য কিছু একটা তৈরি করার চিন্তা মাথায় আসে। সে চিন্তা থেকেই এই ইলেকট্রোশু তৈরি করেছি।’

এসএইচ-২০/২২/০৫ (অনলাইন ডেস্ক, সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া)

The post ধর্ষণকারীদের হাতেনাতে ধরতে অভিনব চপ্পল appeared first on Padma News - Bangla.

]]>
217875
আ’লীগ উন্নয়নে বিশ্বাসী: পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী https://padmanews.com/bangla/rajshahi/217874/believing-in-the-development-of-al-state-minister-for-foreign-affairs/ Mon, 22 May 2017 15:43:03 +0000 https://padmanews.com/bangla/?p=217874 শেখ হাসিনা সরকার নারীদের উন্নয়নের জন্য যা করেছেন তা বিগত কোন সরকার করেনি। নারীদের ক্ষমতায়ন ও কর্মসংস্থানের জন্য যা কিছু করণীয় তা করা হবে। আমরা উন্নয়নে বিশ্বাসী। এই দেশকে উন্নয়নশীল এবং মধ্যম আয়ের দেশ হিসেবে পরিণত করতে যা কিছু করণীয় তাই করা হবে বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। সোমবার দুপুরে বাঘা উপজেলা মহিলা […]

The post আ’লীগ উন্নয়নে বিশ্বাসী: পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী appeared first on Padma News - Bangla.

]]>
শেখ হাসিনা সরকার নারীদের উন্নয়নের জন্য যা করেছেন তা বিগত কোন সরকার করেনি। নারীদের ক্ষমতায়ন ও কর্মসংস্থানের জন্য যা কিছু করণীয় তা করা হবে। আমরা উন্নয়নে বিশ্বাসী। এই দেশকে উন্নয়নশীল এবং মধ্যম আয়ের দেশ হিসেবে পরিণত করতে যা কিছু করণীয় তাই করা হবে বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

সোমবার দুপুরে বাঘা উপজেলা মহিলা আ.লীগের উদ্যোগে বাজুবাঘা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

আরও খবর: অভিনব কায়দায় দুর্নীতির প্রতিবাদ!

উপজেলা মহিলা আ.লীগের সভানেত্রী ফাতেমা মাসুদ লতার সভাপতিত্বে ও রাজশাহী জেলা মহিলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক নাসরিন আক্তার মিতার সঞ্চালনায় সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, রাজশাহী জেলা আ.লীগের সিনিয়ার সহ-সভাপতি ও সংরক্ষিত আসনের এমপি বেগম আখতার জাহান।

বাঘা থানা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক বাবুল ইসলাম, রাজশাহী জেলা মহিলা আ.লীগের সভাপতি মর্জিনা পারভীন, রাজশাহী জেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক বিপাশা খাতুন প্রমুখ।

এমও-১৩/২২-০৫ (নিজস্ব প্রতিবেদক)

The post আ’লীগ উন্নয়নে বিশ্বাসী: পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী appeared first on Padma News - Bangla.

]]>
217874