এঁটো টোস্ট থেকে কুমারীত্ব !

প্রকাশিতঃ ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ আপডেটঃ ৪:১৬ অপরাহ্ণ

১) বিখ্যাত সংগীত তারকা জাস্টিন টিম্বারলেক-এর আধখাওয়া ফ্রেঞ্চ টোস্ট বিক্রির জন্য বিড করেছিল একটি ওয়েবসাইট। দু’দিনে ৪০টি বিড পড়েছিল। শেষ পর্যন্ত ৩১৫৪ ডলারে বিক্রি হয় সেই এঁটো টোস্টের টুকরো।

২) ব্রিটেনের বাসিন্দা জন ম্যালিপিন অনলাইনে বিক্রি করেছিলেন তাঁর কাল্পনিক বন্ধুকে, অর্থাৎ বাস্তবে যাঁর কোনও অস্তিত্বই নেই। শুধু এই কল্পনাটিও বিক্রি হয়েছিল!

৩) ১৯৭৯ সালে দু’জন সিরিয়াল কিলার, লরেন্স বিটেকার এবং রয় নরিস বহু মানুষকে খুন করে দক্ষিণ ক্যালিফোর্নিয়া অঞ্চলে। তাদের কাটা নখের টুকরো বিক্রি হয়েছিল অনলাইন।

৪) ২০০৪ সালে এক ব্যক্তি একটি রবারের খেলনা হাঁস বিক্রি করেছিলেন অনলাইন যা নাকি তাঁর কথায় ছিল ভুতুড়ে। তিনি লেখেন, সেই হাঁসটি নাকি তার দেড় বছরের ছেলেকে কামড়েছে, তাকে কুচুটে এবং স্বার্থপর করে তুলেছে। সেই হাঁসটিও বিক্রি হয়েছিল।

৫) ২০০৭ সালে আমেরিকায় ১০ লক্ষ ডলারের বিনিময়ে এক ব্যক্তি নিজের আত্মাকে বিক্রি করতে চেষ্টা করেন। কেন? ক্রিসমাসের খরচ তোলার জন্য।

৬) প্রেসিডেন্ট জন এফ কেনেডিকে একটি স্কুলের জানলা থেকে গুলি করে খুন করা হয়। ফ্রেম-সহ সেই জানলাটি অনলাইনে নিলামে ওঠে। ১৮৮টি বিড পড়েছিল। ৩,০০১,৫০১ ডলারে বিক্রি হয় ২০০৭ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি।

৭) অষ্টাদশী এক ব্রিটিশ মেয়ে ইবে-তে নিজের কুমারীত্ব বিক্রি করেছিল। যে কোম্পানিটি কিনেছিল তারা টাকা দিয়েছিলেন, মেয়েটির কুমারীত্ব অক্ষয় রেখেই।

৮) যদি চাঁদে জমি বিক্রি হতে পারে অনলাইন, তবে ইন্টারনেটে ‘ইন্টারনেট’-ই বা বিক্রি হবে না কেন? এই মর্মে ১০ লক্ষ ডলারে বিড শুরু করা হয়। তবে আদতে পে প্যালে এই ট্রানজাকশনটি সম্পূর্ণ হয়নি।

৯) ব্রিটনি স্পিয়ার্সের খেয়ে ফেলে দেওয়া চুয়িং গাম কুড়িয়ে পেয়েছিলেন একজন লন্ডনের একটি হোটেলে। ইবে-তে বিক্রি করার চেষ্টা করা হয় এবং বিক্রিও হয়ে যায়।

১০) ২০০৫-এ এক মহিলা তাঁর সন্তানের নামকরণের অধিকারকে অনলাইন অকশনে তোলেন। আশ্চর্য ব্যাপার, ১৫,১০০ ডলারে বিক্রি হয় সেই অধিকার।

অনলাইন ডেস্ক (সূত্র : এবেলা)